দুআ ও যিকির

দুআ ও যিকির

দুআ ও যিকিরের ব্যপারে ইসলাম অনেক গুরুত্বারোপ করেছে, দুআই মুমিনের প্রথম ও প্রধান হাতিয়ার।
আবূ হুরায়রা রা. থেকে বর্ণিত এক হাদীসে কুদসীতে এসেছে,
‘ বান্দা আমার প্রতি যেমন ধারণা করে আমি তার সঙ্গে তেমন আচরণ করি। সে আমাকে যখন ডাকে আমি তখন তার সঙ্গেই থাকি’(মুসলিম)। উবাদা ইবনে সামেত রাঃ-এর সূত্রে বর্ণিত এক হাদীসে এসেছে, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন: ‘পৃথিবীর বুকে কোনো মুসলমান যখন আল্লাহর কাছে কোনো দোয়া করে আল্লাহ তায়ালা তা কবুল করে তাকে সে বস্তু দান করেন অথবা ওই বিষয়ের সমপর্যায়ের কোনো বিপদ সরিয়ে নেন। তবে শর্ত হলো গোনাহ বা আত্মীীয়তার সম্পর্ক ছিন্ন করার দোয়া না হতে হবে’। (তাহাবী, সহীহ)। জিকির ছেড়ে দিয়ে দুনিয়ার জীবনে ভাল থাকা যায় না। আল্লাহ তায়ালা বলেছেন, ‘যে আমার স্মরণ থেকে মুখ ফিরিয়ে নেবে, তার জীবিকা সংকীর্ণ হবে এবং আমি তাকে কেয়ামতের দিন অন্ধ অবস্থায় উত্থিত করব।’ (সূরা ত্বহা : ১২৪)। মানসিক প্রশান্তির জন্যও জিকির এক মহৌষধ। আল্লাহ তায়ালা বলেছেন, ‘যারা বিশ্বাস স্থাপন করে এবং তাদের অন্তর আল্লাহর যিকির দ্বারা শান্তি লাভ করে; জেনে রাখ, আল্লাহর যিকির দ্বারাই অন্তর সমূহ শান্তি পায়।’ (সূরা রাআদ : ২৮)।

দুআ ও যিকির - এর অন্যান্য বইসমূহ